এই নীলিমায় আমরা . . .

 

© Monirul Alam
 
আজ ১৪ আগষ্ট, ২০১৫ আমাদের দাওয়াত ছিল ফরিদাবাদ, আইজি গেট, ব্যাংক কলোনিতে। সেখানে আমার খালাত বোন— শিমুল, তার পরিবার নিয়ে থাকে । ছোট আভনীত’কে নিয়ে শিমুল-শাহজাহানের সংসার । ওরা দুজনেই ব্যাংকে চাকুরী করে। আমাদের সবার দাওয়াত ছিল । অনেক অনেক দিনপর— আমরা কাজিনরা একত্রিত হলাম সেখানে। সঙ্গে আমাদের পুচকেরা, মামা-মামী,খালা-খালু’রা আর আমাদের সবার পি্রয় নানী— নানীর বয়স এখন ৮৪ বছর । এখন আমাদের পরিবারের মধে্য সবার বড় মুরুব্বি বলতে— আমাদের একমাত্র নানী । আমাদের পুচকেরা নানীকে বড় ‘মা’ বলে ডাকেন । তার শরীরটা খুব একটা ভালো যাচ্ছে না । তবে আল্লাহর রহমতে, সে সবাইকে এখনো চিনতে পারেন —তার পুতিদের সাথে কথা বলেন, ওদের আদর করেন, দোয়া করেন । দুপুরের পর থেকে সন্ধ্যা অবধি আমাদের আড্ডা চলতে থাকল । সবাই মিলে খাওয়া-দাওয়া, ছবি তোলা,আলাপে আলাপে কেটে গেল, সুন্দর সেই সব মুহুর্ত গুলো । 

আমার মনে পরে গেল— আমাদের ‘বন্ধন’ নামের সংগঠনটির কথা । আমরা কাজিনরা মিলে একটা সংগঠন করেছিলাম । নিজেদের সংগঠিত করতে বেশ কিছু কর্মসূচী ছিল আমাদের—তারপর নাগরিক ব্যস্ততা, নিজেদের ক্যারিয়ার গড়া আর সাংসারিক দায়িত্ব—সব কিছু মিলিয়ে পরবর্তীতে সংগঠনটি নানা কর্মসূচী আর হয়ে উঠেনি। তবে আমি যেটা চেয়েছিলাম— নিজেদের মধ্য বন্ধনটা অটুট থাকুক । সেটা আমাদের মধ্যে তৈরি হয়েছে । ভিত্তিটা সঠিক হয়েছে— এখন এটাকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়া । ভবিষ্যত প্রজন্মের হাতে তুলে দেয়া । 
আমাদের কাজিনদের মধ্য কেউ কেউ ইতিমধ্যে পড়াশোনার জন্য বিদেশে পাড়ি জমিয়েছে । এ সপ্তাহে স্কলারশিপ নিয়ে শুভ— চলে গেল কানাডাতে । বাঁধন— তার স্বামীর সাথে আছে অষ্টে্রলিয়াতে । সৌরভ—আমেরিকাতে, সুমি—তার স্বামীর সাথে ওমানে, আর আমরা বাকিরা বাংলাদেশে আছি । মজার ব্যাপার হলো, ফেসবুক থাকায় সবার সাথে কমবেশি যোগাযোগ গুলো আছে । আমাদের কাজিনদের মধ্যে সবচেয়ে বড় হলো লিটন ভাই বয়স ৪৮, নানী যাকে সম্প্রতি পাইলট বলেন, আর সবচেয়ে ছোট সদস্য হলো আলভিনা বয়স ১০ বছর । 
আশা রাখি—এই সব লেখা এবং ছবি গুলো আমাদের অতীত এবং ভবিষ্যত প্রজন্মকে জানতে এবং জানাতে কাজ করবে। সবাই ভালো থাকুন . . . 

১৪, আগষ্ট, ২০১৫

ফরিদাবাদ,আইজি গেট, ব্যাংক কলোনি 

পুরান ঢাকা