আজ বিশ্ব বাবা দিবস . . .

snapseed-37
© Monirul Alam / WITNESS PHOTO

বিশ্ব বাবা দিবস—সকল বাবা কে অভিনন্দন জানাই । কর্মব্যস্ত বাবা— নিজের সন্তানের জন্য সময় বের করুন । নিজের ছেলে-মেয়ে’র সাথে সময় করে খেলাধুলা করুন, শুধু মাত্র সাংসারিক দায়িত্ব বোধ টুকুর মধ্যে সীমাবদ্ধ না থেকে—আপনার সন্তান’কে আরো ভালোবাসা দিন, সময় দিন।

জাতিসংঘের শিশু তহবিলের ইউনিসেফ সাম্প্রতিক জরিপটি জানাচ্ছে—বিশ্বে অর্ধেকের বেশি শিশু তাদের বাবার সঙ্গে লেখাধুলার সুযোগ থেকে বঞ্চিত থাকে ! ৭৪টি দেশে এই জরিপ চালানো হয় । বিশ্বের প্রায় ৮০টি দেশে এই বাবা দিবসটি পালন করা হয়ে থাকে এখন ।

আমার বাবা আজ বেঁচে নেই । তিন সন্তানের জনক এই মহান মানুষটিকে ছোট বেলায় অনেক ভয় পেতাম । ভয়ে কাছে যেতাম না ! কিন্তু এটা ছিল—আমার ভুল ! বোঝা-পরার সময়টা পার করতে না করতেই, বাব চলে গেলেন —না ফেরার দেশে ! জমে থাকা কথা গুলো, বাবাকে— আর বলা হলো না !

আমার বাবা হারিয়ে, আরো এক বাবা পেয়েছি আমি —ছোট বাবা; আমার সন্তান । সেই ছোট বাবা ‘মেঘ’ কে নিয়ে আমার সময় কাটে—আদর-ভালোবাসা, মান-অভিমান বাপ-বেটা মিলে উপভোগ করি । বাবা মানুষটি যে ভয়ের না, বাবা যে জীবনের অনেক বড় বন্ধু —সেটা মেঘ ইতি মধ্যে জেনে গেছে । সে বাপ-সন্তানের এই সম্পর্ক—মন থেকে অনুভব করে !

বিশ্ব বাবা দিবসে মা-বেটা মিলে আমার জন্য— খুব সুন্দর একটা গিফট তৈরি করেছে ! সেই গল্পটা না হয়, অন্য কোন দিন করা যাবে । পিতা-সন্তানের ভালোবাসা অটুট থাকুক— আজীবন ।

সবাইকে বিশ্ব বাবা দিবসের ভালোবাসা . . .

পুরান ঢাকা
১৬ জুন ২০১৭

IMG_6901
© Hafizun Nahar / WITNESS PHOTO

এক নির্জন ভূগোলে . . . 

© Monirul Alam

১. রাত থেকেই শিশির পড়ছে— টিনের চালের উপর শিশির পড়ার সেই শব্দটা খুব ভালো লাগছে । মাঝে মাঝে বাদুরের ডানা ঝাপটানোর শব্দটা—অনেকটা ভয় জাগানিয়া ! অনেক দিন পর আবার ফিরে এলাম আমাদের—হিজুলিয়া গ্রামে। আমার ফুপাতো ভাই, মুকুলের সাথে দেখা হলো, সে চেয়ারম্যান নিবর্াচন করবে । তাই নিয়ে বেশ ব্যস্ত দিন কাটছে তার। গ্রামের অন্যান্য স্বজনদের সাথে দেখা হলো—কথা হলো ।  

ভোর রাতে আড়ত থেকে মাছ নিয়ে আসার পরিকল্পনা বাতিল করলাম। আমাদের গ্রামের বাড়ীটি দেখা-শোনার দায়িত্ব পালন করেন—খলিল ভাই, তাকে আড়ত থেকে মাছ আনার দায়িত্ব দিলাম । এখানে অনেক অনেক মাছ পাওয়া যায়—বোয়াল, শৈল, কৈ আর ছোট মাছ এ গুলো এখানকার ডাঙ্গার, তাজা মাছ । মুকুলকে বলে দিলাম— ভোরে এক হাড়ি খেজুরের রস পাঠিয়ে দিতে । অনেক দিন খেজুরের রস খাওয়া হয় না—সেই সাথে খাওয়া হয় না, খেজুরের রস দিয়ে তৈরি —পায়েস আর নানা পিঠা-পুলি । 

ভোরের কুয়াশায় অনেক অনেক দিন হাঁটি না— একা একা এই খানে । ঝরা পাতা,সরিষা ফুল আর নাম না জানা গাছের পাতার উপর শিশির বিন্দু—দেখা হয় না কতো দিন ! গ্রাম-বাংলার এই প্রকৃতির মধ্য লুকিয়ে আছে সেই সব রুপ-রহস্যে ! যা আমার কাছে অমতর্ —নিত্য দিনের । অথচ তা কতোদিন —দেখা হয়ে উঠে না আমার; এই যাপিত জীবনে ! এই বিপন্নতার দায় মেটাতে— বার বার ফিরে ফিরে আসি এই খানে— এই জীবনের কাছে। এই নির্জন ভূগোলে ! যেখানে আমার অতীত বারবার কথা কয়ে উঠে ! 

সরিষা ক্ষেতের আল ধরে—কবরস্থানের পাশ দিয়ে হাঁটতে হাঁটতে অনেক দূর চলে যাওয়া যায় । নির্জন এই প্রান্তটি আমার কাছে সব সময়—এক বিস্ময় ! আজ ২৫, বছর হলো— বাবা, এখানে চির নিন্দ্রায় ঘুমিয়ে, আছেন দাদা-দাদী, বড় ফুপু আর কত শত স্বজনেরা —তারা এখানে দিয়েছেন দীঘর্ ঘুম। মাঝে মাঝে আমার কাছে মনে হয়—হয়তোবা তাদের স্বানিধ্য পাবার আশায় বার বার ঘুরে-ফিরে; ফিরে আসি এই খানে— যেখানে সরিষা ফুলের হিম গন্ধ পাই—আমার নি:শ্বাসে । 

যতো দূর চোখ যায়; শুধু হলুদ সরিষার আঁকাবাঁকা রেখা । ঘন কুয়াশার মাঝে দেখতে পাই —ভোরের লাল সূযর্ উকি দিচ্ছে এই নির্জনে— নি:শব্দে পথ হাটতে থাকি, ধুসর কুয়াশায় হঠাৎ একটা কুকুরের দেখা পাই— আঁকাবাঁকা শুকিয়ে যাওয়া খালটির নালায় তার পিপাসা মেটায় । কবরস্থান পেছনে ফেলে হাঁটতে হাঁটতে দেখা হয়ে যায়— হিজল গাছটির ডালে বসে আছে—ভোরের দোয়েল ! নাম না জানা সেই হলুদ পাখি ! জলাধার পেড়িয়ে আরো একটু এগিয়ে যাই—ভোরের কুয়াশায় মরা গাছের ডাল গুলোতে বসে আছে— এক ঝাঁক ধবল বক—মাছের লোভে ! বসে আছে—অঁক পাখি ! দেখা মেলে ভোরের মানুষের ! 
ক্ষেতের আঁকাবাঁকা পথ ছেড়ে উঠে পরি সড়কটিতে —দেখি; একদল হাঁস, গুটি গুটি পায়ে এগিয়ে যায় ঐ পুকুরটির দিকে । বাঁশের সাঁকো পেড়িয়ে, বাড়ীর মুখে যেতেই — লাল ঝুটিওয়ালা মোরগটি ডেকে উঠে । ডেকে উঠে গৃহস্থের সেই কুকুরটি। মনে পরে যায়— আমাদের ছোট মেঘ এতোক্ষণে তার নতুন সঙ্গী— মুরগী, বিড়াল আর কুকুর ছানাদের সাথে ছুটোছুটি শুরু করে দিয়েছে । বাড়ী ফিরে দেখি—গাছি, এক হাড়ি রস রেখে গেছেন, সকালে মুড়ি আর খেজুরের রস আমার খুব পি্রয় খাবার । পরিবার সদস্যদের নিয়ে সকালের নাস্তা শেষ করে, আমাদের পূবর্ চকের দিকে যাবার ইচ্ছা রাখি— সেই ভ্রমনের কথা না হয় অন্য আরেক দিন বলা যাবে । 

আজকের এই লেখাটি—অনন্য কবি জীবনানন্দ দাশের একটি চরণ দিয়ে শেষ করতে চাই, 

“যে জীবন ফড়িংয়ের, যে জীবন দোয়েলের, মানুষের সাথে তার হয় নাকো দেখা”!

হিজুলিয়া, ডিসেম্বর, ২০১৫

মনিরুল আলম 

© Monirul Alam
   
© Monirul Alam
 
 
© Monirul Alam
  
© Monirul Alam
  
© Monirul Alam
  
© Monirul Alam
  
© Monirul Alam
  
© Monirul Alam
 

POD | Zuma Press 16 May 2013

©Monirul Alam
©Monirul Alam

May 16, 2013 – Chittagong, Bangladesh – Bangladeshi police urge people to move to safer areas ahead of the arrival of tropical cyclone Mahasen in Chittagong, Bangladesh. People living in coastal areas in Bangladesh and Myanmar are being evacuated as cyclone Mahasen is expected to make landfall late Thursday or early Friday, according to news reports. (Credit Image: © Monirul Alam/ZUMAPRESS.com)

Copy Right Notice:
All images and text in this site is copyrighted. http://monirul.photoshelter.com/  Please don’t use any image without written permission. Please contact monir4@yahoo.com

 

POD | Zuma Press 06 April 2013

© Monirul Alam
© Monirul Alam

April 6, 2013 – Dhaka, Bangladesh – Islamic activists march to Dhaka’s business hub Motijheel turning it into a human sea as thousands of people poured into the area to join the mass rally of radical Islamist organization Hefajat-e Islam to press home its 13-point demands including capital punishment of atheist bloggers for ‘defaming’ Islam and Prophet Muhammad (pbuh). (Credit Image: © Monirul Alam/ZUMAPRESS.com)

Copy Right Notice:
All images and text in this site is copyrighted. http://monirul.photoshelter.com/  Please don’t use any image without written permission. Please contact witnessphoto@gmail.com

POD | Zuma Press 28 March 2013

© Monirul Alam
© Monirul Alam

March 28, 2013 – Dhaka, Bangladesh – Police point a gun at a home owner during a search for protesters who took part in a nationwide strike called by the opposition Bangladesh Nationalist Party (BNP). The BNP and its allies enforced a 36 hour general strike across the country mainly to demand the release of more than 150 of their leaders and activists detained earlier this month. (Credit Image: © Monirul Alam/ZUMAPRESS.com)

Copy Right Notice:
All images and text in this site is copyrighted. http://monirul.photoshelter.com/  Please don’t use any image without written permission. Please contact monir4@yahoo.com

Eid-ul-Fitr Preparations 2012 in Bangladesh

Monirul Alam

August 15, 2012.Dhaka, Bangladesh-Bangladeshi people takes risk to ride on the launch roofs at Sadar ghat launch terminal while they leaves from Dhaka  to their village to share the joy of Eid-ul-Fitr with family members.The Muslims are observing the holy Ramadan and will celebrate the Eid festival which marks the end of it on 20 August 2012 © Monirul Alam 

visit: ZUMA Press

400 shanties gutted in Dhaka Bangladesh

©Monirul Alam

17 Nov. 2011. Dhaka.Bangladesh-People search for belongings after a devastating fire at a slum at Mohammadpur Rayer Bazar in Dhaka, A devastating fire gutted around 400 shanties of a slum in the capital’s Rayer Bazar area Thursday afternoon. The blaze completely damaged two under-construction buildings adjacent to the tin-shed slum in Battala  Rayer Bazar . At least 2,000 people, mostly garment workers and rickshaw pullers lost their homes in the incident. ©Monirul Alam http://monirul.photoshelter.com/


People’s takes risky Journey for Celebrate Eid-ul-Azha in Bangladesh

I was their around 6.30 am. on the Dhaka airport train station to cover the people’s train journey on upcoming Eid Holidays. Thousands of home bound people left Dhaka and to go to their village town celebrating Eid with their loved ones.  Yes, it wills an amazing to see when train arrives on the station. I stand on the foot over bridge to take photos and observe the whole situation.

© Monirul Alam

 At that time one of train passenger came to me and asked, Are you journalist and said , I came here yesterday at  6.00 pm. to go to my home town in Lal Monirhat but my train is not to coming on time and authority said, It will possible to come around at 8.00 or 9.00 am these morning ! I am just waiting for long time and spend 200 tk. for my food; I spent one night on the station platform and fall sick.

I looked him and pay attention his problem but not to find any solution. I think this is our system every Eid holidays home bound people are regularly facing these problem.  Atik Hossain  work in a garments factory in the Dhaka city, he also said, I don’t have any ticket yet, my train name Rangpur Express, maybe I will try to ride on the train roof, I know it’s a risky journey but I don’t have any other way.

I am really pained at heart to read today’s news paper Eight people  died falling off the roof of running trains in Tangail and Bogra district on Friday night and yesterday. But people are not to pay much attention and not to bother about the news. I think people really mad to go their village any way. But the painful news is that every year home bound people take these risks by train, launch and bus journey and is in occurred an accident.  

© Monirul Alam

However, when the train arrives in the station, it’s already overcrowded look like a human sea. Within a few minutes people rush on the train and agitate each other to boarding on the train. Finally they are happy to go to their home to take a risky journey on the train roof. I hope to safe their journey and to celebrate the Eid-al-Azha with their loved ones.

Eyewitness, monirul alam, Dhaka, Bangladesh. 06. November 2011. http://monirul.photoshelter.com/